করোনা: প্রতিটি পরিবারকে চিঠি পাঠালেন বরিস জনসন


বরিস জনসন

করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ভাল হওয়ার চাইতে আরও খারাপ হবে বলে সতর্ক করেছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। শনিবার যুক্তরাজ্যের প্রতিটি পরিবারকে চিঠি পাঠিয়ে তিনি এই বার্তা দেন।

ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে প্রয়োজনে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হতে পারে বলে ওই চিঠিতে জানিয়েছেন তিনি। বিবিসি জানায়।

প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় কোভিড -১৯ ধরা পরার পর থেকে আইসোলেশনে রয়েছেন। ওই চিঠির সঙ্গে বাড়ির বাইরে বের হওয়া এবং স্বাস্থ্য সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য সম্বলিত সরকারি নিয়মকানুন উল্লেখ করে  লিফলেট দেয়া হয়েছে।

চিঠির সাথে পাঠানো লিফলেটটিতে হাত ধোয়া সম্পর্কিত দিক নির্দেশনা, করোনাভাইরাসের লক্ষণগুলির ব্যাখ্যা এবং অসহায় মানুষদের সহায়তা করা সংক্রান্ত নানা পরামর্শ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

সরকারী পরামর্শের স্পষ্টতা নিয়ে সমালোচনার পর এই পদক্ষেপ নিলেন প্রধানমন্ত্রী।

ব্রিটেনের প্রায় তিন কোটি পরিবারকে ওই চিঠি পাঠাতে খরচ হয়েছে প্রায় ৫৮ লাখ পাউন্ড। চিঠিতে জনসন লিখেছেন, 'শুরু থেকেই আমরা সঠিক সময়ে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা করেছি।'

তিনি আরও বলেন, 'তবে আমরা সঠিক প্রস্তুতি নিচ্ছি, এবং আমরা সবাই নিয়ম যত বেশি মেনে চলবো, তত কম জীবন হারাবো এবং ততো তাড়াতাড়ি জীবন স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে।

জনসন তার চিঠিতে করোনা মহামারিকে 'জাতীয় জরুরি পরিস্থিতি' হিসাবে উল্লেখ করেছেন এবং জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা রক্ষা করতে এবং জীবন বাঁচাতে সবাইকে বাড়িতে থাকতে অনুরোধ করেছেন। সেই সঙ্গে তিনি চিকিৎসক, নার্স এবং অন্যান্য সেবাদানকারীর পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবকদের কাজের প্রশংসা করেছেন।

এদিকে, প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন শনিবার সকালে ভিডিও-বনফারেন্সের মাধ্যমে কোভিড -১৯ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। আগামী দুই থেকে তিন সপ্তাহ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে থাকবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ব্রিটেনে শনিবার আরও ২৬০ জন মানুষ মারা যাওয়ায় দেশটিতে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা এখন ১,০১৯ জনে পৌঁছেছে।

রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads