রাতে ক্রিকেটারদের বাড়িতে ডেকে যা বলেছিলেন বিসিবি সভাপতি


পাপন

আফগানিস্তানের সাথে চট্টগ্রামে একমাত্র টেস্টে হারের পর চারিদিকে যখন ক্রিকেটারদের ব্যর্থতা নিয়ে সমালোচনা চলছে, এরকম এক প্রেক্ষাপটে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ফেরা দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের মঙ্গলবার রাতে নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

সেখানে ম্যাচ নিয়ে ক্রিকেটারদের সঙ্গে নানান কথা হয়েছে বলে জানান তিনি।

”টেস্ট ম্যাচটা আমরা হেরে গেছি তাই সিনিয়র ক্রিকেটারদের সাথে বসেছি, আজ আরো অনেকের সাথে কথা হল। আপনারা অনেকে ভাবছেন শেষ হয়ে গেছে, আমি বিশ্বাস করি না। ওদের বলেছি, এরকম কষ্ট আমরা আগেও পেয়েছি, তবে এটাই সবচেয়ে কষ্টের না, এখনো আমার সবচেয়ে কষ্ট লাগে বিশ্বকাপে ভারতের কাছে হারা ২ রান বাকি ছিল, এছাড়া নিদাহাস ট্রফি আর এশিয়া কাপের ফাইনালে হারাও কষ্টের ছিল। তবে এই হার নিয়ে এতো কিছু বলার নেই। কিছুই শেষ হয়ে যায়নি।”

দুপুরে মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলছিলেন বিসিবি সভাপতি।

চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের টেস্ট ম্যাচ চলাকালেও একবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন তিনি।

সেসময় দলের পারফরম্যান্সে নিজের ক্ষোভ জানিয়ে দলীয় পরিকল্পনা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন তিনি।

ওদিকে চটগ্রামে ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে নিজের হতাশা গোপন করেননি সাকিব আল হাসানও। নিজের অধিনায়কত্ব নিয়ে খুব একটা আগ্রহী নন বলেও জানিয়েছিলেন তিনি।

তবে বিসিবি সভাপতির ব্যাখ্যা, ”ওর টেস্টের ব্যাপারে আগ্রহ খুব একটা নেই, বাইরে যখন দল যাচ্ছিলো, তখনও বিশ্রাম চাচ্ছিলো। অধিনায়ক হলে তো টেস্ট খেলতেই হবে। আমাদের হাতে যা অপশন আছে তাতে সেই সেরা। সাকিব আমাদের সাথে বললে সরাসরি কথা বলবো, মনটন তো খারাপ হয়ই।”

প্রশ্ন ঊঠেছে দলের তরুণদের পারফরম্যান্স নিয়ে। ধারাবাহিক ব্যর্থতার পরও অনেকে খেলে যাচ্ছেন দলে।

”সৌম্য, লিটন টেস্টের জন্য না, তামিম নাই, ইমরুল বাচ্চার অসুস্থতার জন্য ছুটিতে গেছে তাই ওরা খেলেছে, এখন পরিস্থিতি বুঝতে হবে। আপনারা আমাদের ছেলেদের অনেক আন্ডারএস্টিমেট করেন, এতো খারাপ ওরা না।”

সূত্র: বিবিসি বাংলা

এসএম/আওয়াজবিডি