কাতার বিশ্বকাপ দুর্নীতি মামলায় প্লাতিনি গ্রেফতার


প্লাতিনি

কাতার বিশ্বকাপের নিলামে দুর্নীতি করার অভিযোগে মিশেল প্লাতিনি গ্রেফতার হয়েছেন। মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকালে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ৬৩ বছর বয়সী এ সাবেক ফুটবলারকে প্যারিসের নতেঁরেসের পুলিশের হেফাজতে নেওয়া হয় জানিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে মিডিয়াপার্ট নামক এক ফরাসী দৈনিক।

আগামী ফুটবল বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে কাতারে। ২০১০ সালের ডিসেম্বরে সবাইকে অবাক করে দিয়ে ২০২২ বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ হওয়ার দৌড়ে সবাইকে পেছনে ফেলে দেয় তারা। ঘুষ নিয়ে স্বাগতিক হিসেবে কাতারকে বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পাইয়ে দেওয়ার পেছনে প্লাতিনির বড় ভূমিকা ছিল বলে অনেক দিন থেকেই সংবাদ প্রকাশ পেয়েছে। তার ধারাবাহিকতায় এবার গ্রেফতার হলেন প্লাতিনি।

সে সময় বলা হয়েছিল, বিশ্ব ফুটবলকে আরও বৈশ্বিক করতে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তবে এ নিয়ে বিতর্কের শেষ ছিল না। ফিফার সাবেক ভাইস-প্রেসিডেন্ট জ্যাক ওয়ার্নার তাদের একটি ই-মেইল বার্তা ফাঁস করে দাবি করেছিলেন, বিশাল অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে কাতারকে বিশ্বকাপের আয়োজক করা হয়।

২০০৭ সালে উয়েফার প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হন প্লাতিনি। ২০১৫ সালে নিষিদ্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত টিকে ছিলেন তিনি। সেপ ব্লাটারের পদত্যাগের ঘোষণার পর তার উত্তরসূরি হিসেবে ওই সময়ের উয়েফা প্রধান প্লাতিনিকে ভাবা হচ্ছিল পরবর্তী ফিফা প্রেসিডেন্ট হিসেবে। কিন্তু কদিন পরেই তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে দুর্নীতির প্রমাণ পায় ফিফার এথিক্স কমিটি। আর তদন্ত শেষে দুর্নীতির অভিযোগে ব্লাটারের সঙ্গে প্লাতিনিকেও চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে ফিফার ওই কমিটি। ব্লাটারের নির্দেশে ১.৩৫ মিলিয়ন পাউন্ড নিয়েছিলেন প্লাতিনি।

৬৩ বছর বয়স্ক প্লাতিনি ১৯৮০'র দশকে বিশ্বের অন্যতম সেরা একজন খেলোয়াড় ছিলেন। ১৯৮২ সাল থেকে ১৯৮৭ সাল পর্যন্ত জুভেন্টাসের হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটিয়ে ক্যারিয়ারে জিতেছেন তিন তিনটি ব্যালন ডি'অর। তার অবসরের পর ১৯৯০ সালে ফ্রান্স বিশ্বকাপের বাছাইপর্বও উৎরাতে পারেনি। ১৯৯২ সালের ইউরোতেও তাদের পারফরম্যান্স ছিল খুবই হতাশাজনক।

Loading...