অপরিবর্তিতই থাকছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড


বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। সবচেয়ে বড় সমালোচনা ছিল- ইমরুল কায়েস এবং তাসকিন আহমেদের বাদ পড়া নিয়ে। জল ঘোলা হলেও ইমরুলের পাট চুকে গেছে! তবে তাসকিন আলোচনায় এখনও। ত্রিদেশীয় সিরিজের মাঝপথেই গুঞ্জন উঠে আবু জায়েদ রাহীর ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপ স্কোয়াডে সুযোগ পাচ্ছেন তাসকিন। কিন্তু সে খবর তখনও নিশ্চিত করেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, জানায়নি কোনও পরিবর্তন আসছে কিনা।

উল্টো বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন সরাসরি জানিয়ে দিয়েছেন, ইনজুরি না হলে অপরিবর্তিতই থাকছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড। তবে তাসকিন, ইমরুলদের মতো ৬-৭ খেলোয়াড়কে নিয়ে বিশ্বকাপের রিজার্ভ স্কোয়াড গঠন করার কথাও জানিয়েছেন তিনি।

শুক্রবার ঢাকার প্যাস প্যাসিফিক সোনারগাঁ হোটেলে বিসিবির আনুষ্ঠানিক ইফতার ও দোয়া মাহফিলে সংবাদ মাধ্যমে এ কথা জানিয়েছেন পাপন।

তিনি বলেন, অপ্রত্যাশিত কোনো কারণ যেমন কোনো খেলোয়াড়ের ইনজুরি বা এমন কিছু না হলে আমরা বিশ্বকাপ স্কোয়াডে কোনো পরিবর্তন আনছি না। যে ১৫ জন দেয়া হয়েছে ওরাই খেলবে বিশ্বকাপে। তবে যদি কেউ ইনজুরিতে পড়ে তখন কাকে বা কাদের নেয়া হবে স্কোয়াডে? এমন কিছু ভেবেছে কি টিম ম্যানেজম্যান্ট? এমন সব প্রশ্নের উত্তরে পাপন বলেন, বিশ্বকাপে আমাদের সম্ভাব্য পরিবর্তিত খেলোয়াড়দের একটা তালিকা করেছি। প্রতিটা পজিশনের জন্য আলাদা আলাদা বিবেচনা করেই আমরা এ রিজার্ভ স্কোয়াডটা বানিয়েছি, যেখানে ৬-৭ জন খেলোয়াড়ের নাম রয়েছে। কোন ৬-৭ খেলোয়াড়কে নিয়ে করা হয়েছে রিজার্ভ স্কোয়াড সে ব্যাপারে কিছু বলেননি তিনি। তবে জানিয়েছেন, ইমরুল কায়েস ও তাসকিন আহমেদের নাম। দলে পাঁচ পেসার থাকায় এ মুহূর্তে তাসকিনের জায়গা নেই। তবে কেউ ইনজুরিতে পড়লে তাসকিনের নামই আগে আসবে বলে জানান পাপন। আপনি উদাহরণস্বরুপ দেখেন, আমাদের স্কোয়াডে মোস্তাফিজ, রুবেল, সাইফউদ্দিন আছে পেসার হিসেবে। সেখানে আবু জায়েদ হলো পঞ্চম পেসার। তাই আমরা তাসকিনকে রিজার্ভ স্কোয়াডে রেখেছি। কেউ ইনজুরি তাকেই নেয়া হবে। একইভাবে ওপেনিংয়ে আমরা রেখেছি ইমরুলকে, মিডল অর্ডার থেকে শুরু করে প্রতিটা জায়গার জন্য খেলোয়াড় নিয়ে একটা তালিকা করেছি।