স্বেচ্ছাসেবকদের বিষাক্ত আচরণ নিয়ন্ত্রণে উইকিপিডিয়ার নতুন নিয়ম


উইকিপিডিয়া

উইকিপিডিয়া তাদের স্বেচ্ছাসেবকদের (উইকিপিডিয়ান) আচরণ নিয়ন্ত্রণের জন্য নতুন একটি নিয়ম করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসি। নারী ও এলজিবিটি স্বেচ্ছাসেবকদের প্রতি কিছু পুরুষ সম্পাদকের ওই আচরণকে প্রতিষ্ঠানটি ‘বিষাক্ত’ বলে মন্তব্য করেছে।

অলাভজনক সংস্থা উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের পরিচালনায় উইকিপিডিয়া লিখিত একটি সাইট যা স্বেচ্ছাসেবী দিয়ে পরিচালিত হয়। স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে অনেক নারী এবং এলজিবিটিকিউ কমিউনিটির সদস্যরা রয়েছে। তাদের অভিযোগ, অন্য সম্পাদকেরা প্রায়ই তাদের হয়রানি করেন। এদিকে উইকিমিডিয়া বলছে, সবাইকে সমান চোখে দেখতে আমাদের অবশ্যই একসঙ্গে কাজ করতে হবে। অন্য প্রদায়ককে মূল্যায়ন করতে হবে।

উইকিপিডিয়া ফেইসবুক-টুইটারের মতো প্রথাগত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নয়। কিন্তু এর সম্পাদকেরা একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। পেজে লেখার পর কনটেন্ট পরিবর্তন করতে পারেন।

কিছু ক্ষেত্রে দেখা গেছে, একজন স্বেচ্ছাসেবী একটি পেজ অ্যাড করার পর আরেকজন সেটিকে রিমুভ করে দিয়েছেন কিংবা পরিবর্তন করছেন। এভাবে তারা ‘সম্পাদকীয় যুদ্ধে’ জড়িয়ে পড়ছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, নতুন কোড অব কন্ডাক্টে প্রতিষ্ঠানটি দুটি ধাপ রাখবে। প্রথমত, ব্যক্তিগত এবং ভার্চুয়াল ইভেন্টের ক্ষেত্রে নীতিমালা প্রণয়ন করা হবে। পাশাপাশি চ্যাটরুম এবং অন্য উইকিমিডিয়া প্রজেক্টের ক্ষেত্রে টেকনিক্যাল স্পেসের জন্য নীতিমালা থাকবে। ৩০ আগস্টের ভেতর বোর্ডের মাধ্যমে এই নীতিমালা কার্যকর হবে।

দ্বিতীয় ধাপে নিয়ম ভঙ্গকারীদের জন্য বছরের শেষ নাগাদ নতুন রূপরেখা বাস্তবায়ন করা হবে। নতুন নীতিমালা অমান্য করলে স্বেচ্ছাসেবীদের নিষিদ্ধ করাসহ সাময়িকভাবে অ্যাকসেস কেড়ে নেয়া হবে।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের জরিপে দেখা গেছে, অনেক নারী স্বেচ্ছাসেবী তাদের কাজ এবং নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় থাকেন। পুরুষ সম্পাদকদের কাছ থেকে প্রায়ই তারা নেতিবাচক ফিডব্যাক পান।

এসএম/আওয়াজবিডি

ads