করোনা: কুইন্সের এলমহার্স্ট হাসপাতালে একদিনে ১৩ জনের মৃত্যু


করোনা নিউইয়র্ক মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন প্রায় ১০ হাজার, মারা গেছেন ১৩০ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৬ হাজার ৪৮, মৃত্যু ৯৪৪ জনের।

যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত ৩৯৪ জন রোগী চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৬৩ হাজার ৪৭২ জন। এদের মধ্যে অন্তত ১ হাজার ৪১১ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

দেশটির সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা নিউইয়র্কে। গত ২৪ ঘন্টায় কুইন্সের এলমহার্স্ট হাসপাতালে ১৩জন করোনায় মারা গেছেন। এনিয়ে নিউইয়র্কে সর্বশেষ ২৮৫ জনের মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের এক চিকিৎসক বলেন, আমরা আক্রান্ত রোগী দেখে নিজেরাই আতঙ্কিত। ইমার্জেন্সি রুম, এমনকি ফ্লোরেও জায়গা নেই। নিউইয়র্কের কুইন্সে ৬ হাজার রোগী করোনায় আক্রান্ত। হাসপাতালে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের সংকট দেখা দিয়েছে।

সিটি মেয়র ব্লাজিও বুধবার বিকেলে বলেছেন, শহরের অর্ধেক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। হাসপাতালে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের সংকট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ফেডারেল থেকে ইতোমধ্যে সাহায্য এসেছে তবে ১ হাজার ভেন্টিলেটর এখনো প্রয়োজন।

এদিকে করোনাভাইরাস সঙ্কটে মার্কিন অর্থনীতি ও জনগণের জন্য দুই ট্রিলিয়ন ডলার প্রণোদনা প্যাকেজের একটি চুক্তিতে সম্মত হয়েছে হোয়াইট হাউস এবং সিনেট। টানা পাঁচদিন উত্তেজনাপূর্ণ আলোচনার পর বুধবার এই সিদ্ধান্তে পৌঁছায় তারা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্বাক্ষরের আগে বিলটি এখন দেশটির প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেটে পাস হতে হবে।

দেশটিতে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, বৈশ্বিক মহামারির পরবর্তী কেন্দ্র হতে পারে যুক্তরাষ্ট্র।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথমবার ধরা পড়ে নভেল করোনাভাইরাস। ইতোমধ্যেই বিশ্বের অন্তত ১৯৬টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস। বিশ্বজুড়ে এতে আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৪১৮ জন, মারা গেছেন ২০ হাজার ৯১২ জন। এছাড়া, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়েছেন মোট ১ লাখ ১৩ হাজার ৮০২ জন।

ads