এবার বগুড়ায় আইসোলেশনে থাকা কিশোরের মৃত্যু


কিশোরীর মৃত্যু

বগুড়া আইসোলেশন ইউনিট মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ১৩ বছরের এক কিশোর মারা গেছে। তার শরীরে করোনার সব লক্ষণ ছিল। বুধবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়।

এর আগে বিকেলে খুব খারাপ অবস্থায় ওই কিশোকে হাসপাতালে ভর্তি হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে। তার বাড়ি জেলার গাবতলী উপজেলার মহিষাবান এলাকায়।

বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) ডা. শফিক আমিন কাজল জানান, বিকেলে গাবতলীর মহিষাবান থেকে ১৩ বছরের এক কিশোর খুব খারাপ অবস্থায় এখানে ভর্তি হয়। রাত ৭টায় সে মারা গেছে।

এর আগে ওই কিশোর ৭ দিন ধরে দুই পায়ে ব্যথা, ৩ দিন ধরে জ্বর নিয়ে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ছিল। করোনার সব লক্ষণ থাকার কারণে এবং বুধবার সকাল থেকে শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ায় ছেলেটিকে ওই হাসপাতাল থেকে বিকেলে আইসোলেশন ইউনিট মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এরপর আইসোলেশন ইউনিটের চিকিৎসকরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করেন ছেলেটিকে বাঁচিয়ে রাখতে। কিন্তু প্রতি ঘণ্টায় তার অবস্থার অবনতি হয় এবং হার্টবিট কমে যেতে থাকে।

ডা. শফিক আমিন বলেন, ছেলেটির করোনা নমুনাসহ ভর্তিকৃত সব রোগীর নমুনা পরীক্ষার জন্য বুধবারই নিজস্ব পরিবহনযোগে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ফলাফল পাওয়া যাবে।

এসএম/আওয়াজবিডি

ads