করোনা আক্রান্ত সন্দেহে ঢাকাফেরত স্বামীকে বের করে দিলেন স্ত্রী


বগুড়া

ঢাকা থেকে গ্রামে ফেরা স্বামীর জ্বর-সর্দি ও কাশি দেখা দেয়ায় তাকে বাড়িতে উঠতে দেননি স্ত্রী।

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সদর ইউনিয়নের কেশরতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার সকালে তিনি বাড়িতে ফিরলে তার স্ত্রী প্রতিবেশীদের জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাড়িতে ফিরেছেন তার স্বামী। এমন খবরে গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

বিষয়টি জানার পর উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগে তোলপাড় শুরু হয়। দ্রুত সেখানে ছুটে যায় উপজেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ.কে.এম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ এবং স্বাস্থ্য বিভাগের স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. শহীদুল্লাহ দেওয়ানের নেতৃত্বে একটি মেডিকেল টিম।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকাল ৬টায় ঢাকা থেকে বাড়িতে যান কাবিল প্রমানিক (৩২)।

ডা. শহীদুল্লাহ দেওয়ান জানান, বর্তমানে ওই ব্যক্তি সুস্থ থাকলেও তাকেসহ পরিবারের সকল সদস্যকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওই ব্যক্তির বাড়িতে লাল পতাকা টাঙিয়ে দেয়া হয়েছে।

স্ত্রী জেসমিন আক্তার প্রতিবেশীদের জানান, ঢাকা থেকে বাড়িতে আসার পর তার স্বামীর জ্বর-সর্দি ও কাশি দেখা দেয়।

অসুস্থ কাবিল প্রামানিক জানান, তিনি ঢাকায় রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন। সেখানে থাকা অবস্থায় তার শরীরে হালকা জ্বর ও সর্দি কাশি হয়। সে কারণে বাড়িতে চলে আসেন।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো একজন আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৯ জনে। ভাইরাসটি থেকে সুস্থ হয়েছেন আরও চারজন। ফলে মোট সুস্থ হয়েছেন ১৯ জন।

সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা করোনাভাইরাস সংক্রান্ত অনলাইন ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

এসএম/আওয়াজবিডি

ads