আমতলীতে করোনা আতঙ্কে রোগী শুন্য হাসপাতাল !


রোগী শুন্য হাসপাতাল !

করোনাভাইরাস আতঙ্কে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স রোগী শুন্য হয়ে পরেছে।

সাধারণ জ্বর, সর্দি ও কাশি নিয়ে রোগী হাসাপাতালে আসছেন না। রোগীদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৮০ জন রোগী চিকিৎসা নিয়েছে। যা ছিল অতি নগন্য। স্বাভারিক অবস্থায় প্রতিদিন হাসপাতালের বর্হিবিভাগে অন্তত ২’শ ৫০ থেকে ৩’শ রোগী চিকিৎসা নিয়েছে। বর্তমানে করোনাভাইরাসের প্রভাবে রোগীর সংখ্যা কমে সপ্তাহে ৮০ জনে এসেছে।

করোনাভাইরাসে সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। করোনার আতঙ্কে সাধারণ সর্দি, জ্বর ও কাশি হলেও রোগীরা তা লুকিয়ে থাকছে হাসপাতালে আসছেন না।

এতে দিন দিন রোগী শুন্য হয়ে পরেছে হাসপাতাল। অনেক স্বাভাবিক জ্বর, সর্দি ও কাশির রোগী হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইনে থাকার ভয়ে চিকিৎসা নিতে আসছে না।

সোমবার আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ঘুরে দেখাগেছে, বর্হিবিভাগ ও আন্তবিভাগের চিকিৎসকরা অলস সময় কাটাচ্ছেন। মাঝে মধ্যে দুই একজন দূর্ঘটনার রোগী আসছে।

গত সাত দিনে বর্হিবিভাগ ও আন্তবিভাগে জ্বর, সর্দি ও কাশি নিয়ে কোন রোগী আসেনি। হাসপাতালের পুরুষ ও মহিলা ওয়ার্ডে দূর্ঘটনার রোগী ছাড়া কোন রোগী নেই। সুনসান নিরবতা রয়েছে হাসপাতালের আন্তবিভাগ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন রোগী বলেন, স্বাভাবিক জ্বর ও সর্দি নিয়ে হাসপাতালে গেলে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হয়। সেই ভয়ে আমরা হাসপাতালে যাইনা।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতার্ শংকর প্রসাদ অধিকারী বলেন, করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক ও যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় রোগীরা হাসপাতালে আসছে না।

তিনি আরো বলেন স্বাভাবিক জ্বর, সর্দি ও কাশির রোগীরা কোয়ারেন্টাইনে থাকার ভয়ে হাসপাতালে আসছে না।

এইচএম/রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads