শহীদ মিনারের প্রধান ফটক দিয়ে পাইপ ঢুকিয়ে মাটি উচুঁ করে প্রতিবন্ধকতা


পাইপ ঢুকিয়ে প্রতিবন্ধকতা

২১শে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস শুক্রবার। দিবসের প্রথম প্রহর থেকেই ফুল নিয়ে শহীদ মিনারে সকল স্থরের জনসাধারণ যাবেন ভাষা আন্দোলনের শহীদের শ্রদ্ধা জানাতে। কিন্তু উপজেলায় মসজিদের পাশে সরকারি জমিতে মাটি ভরাট করতে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের প্রধান ফটকে পাইপ বসিয়ে শহীদ মিনারের প্রধান ফটক দিয়ে পাইপ ঢুকিয়ে মাটি উচুঁ করে পেছনে পাইপ নেওয়া হয়েছে। ফলে উপজেলা বাজারে চলাচলে আর শহীদ মিনারে ভিতরে প্রবেশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হওয়ায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও সচেতন মহলে চরম খুব বিরাজ করছে।

আরো জানা যায়, উপজেলা সদরের কেন্দ্রীয় মসজিদের সরকারি জমিতে কয়েকদিন ধরে মাটি ভরাট কাজ শুরু হয়। এই মাটি ভরাটের জন্য নদী থেকে ড্রেজার বসিয়ে পাইপ ঐ স্থানে নিতে শহীদ মিনারের প্রধান ফটক দিয়ে পাইপ ঢুকিয়ে মাটি উচুঁ করে পাইপ নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার শহীদ মিনারে ফুল দিতে আসবে মুক্তিযোদ্ধাগন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, বিভিন্ন সরকারী বেসরকারি প্রতিষ্ঠান কর্মকর্তা, বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক সংঘটনের নেতা কর্মীগন। কিন্তু বুধবার পর্যন্ত ওই পাইপ ওখান থেকে সরানো হয় নি।

তাহিরপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার রৌজ আলী বলেন, বৃহস্পতিবার দিনের মধ্যেই এই পাইপ  ঠিকাদার কীভাবে সরাবে বা প্রশাসন কীভাবে সরানোর ব্যবস্থা করবেন তারাই ভাল বুঝবেন। সরাতে হবে এর কোন বিকল্প নাই।

তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বীজেন ব্যানার্জী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের আগেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ঢাকার বিশ্বাস বিল্ডার্স’র স্থানীয় দেখভালকারী লোকজনকে ডেকে এনে শহীদ মিনারের মূল ফটক থেকে পাইপ সরিয়ে অন্যদিকে বসানোর জন্য বলে দেয়া হয়েছে।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বিশ্বাস বিল্ডার্স এর প্রধান প্রকৌশলী বিশ্ব কুমার সাহা বলেন,বৃহস্পতিবার দিনের মধ্যেই পাইপ খুলে প্রধান ফটক পরিস্কার করে দেবেন তাঁরা।

জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া/এসএম/আওয়াজবিডি

ads