ঋণের বোঝা বইতে না পেরে টঙ্গীতে যুবকের আত্মহত্যা


যুবকের আত্মহত্যা
ফাইল ছবি

টঙ্গীর মধ্য-আরিচপুরে গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঋণের বোঝা বইতে না পেরে মো.মামুন (২৫) নামে এক যুবক নিজ ঘরের সিলিং এর সঙ্গে গলায় রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশের উপ-পুলিশ পরিদর্শক রাজিব হোসেন নিহতের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর মর্গে প্রেরণ করেছেন।

নিহত মামুন জামালপুর জেলার নান্দিনা গ্রামের মৃত.আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে। সে তার পরিবার নিয়ে টঙ্গীর মধ্য-আরিচপুর এলাকায় আবুল হোসেনের বাড়িতে বসবাস করতেন।

পুলিশ জানায়, নিহত মামুন কোন কাজ না পেয়ে দির্ঘদিন যাবত হতাশায় ভুগছিলেন। তার স্ত্রী শারমিন আক্তার একটি পোশাক কারখানায় কাজ করে সংসার পরিচালনা করতেন। তাদের সংসারে দুটি সন্তান রয়েছে। অভাবের কারণে মামুন এলাকায় অনেকের কাছ থেকে বহু টাকা ঋণ করেন।

স্বামীর ঋণ পরিশোধ করতে ও নিজের সংসার চালাতে মামুন তার স্ত্রীর নামসহ বিভিন্ন নামে পর্যায়ক্রমে বেসরকারি সংস্থা (এনজিও)সহ আরও কয়েকটি সমিতি ও ব্যক্তির কাছ থেকে চড়া সুদে ঋণ গ্রহন করে। এভাবে তিনি কয়েক লাখ টাকা ঋণগ্রস্থ হয়ে পড়েন। ওই টাকার সুদসহ কিস্তি পরিশোধ করতে না পারায় পাওনাদাররা বিভিন্ন সময়ে তাঁর বাড়িতে গিয়ে হানা দিতো।

ঘটনার দিন সকালে এসব বিষয় নিয়ে সে তার স্ত্রীর সঙ্গে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নিজ ঘরের সিলিং এর সঙ্গে রশি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। খবর পেয়ে টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ তার লঅশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেন।

টঙ্গী পূর্ব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো.জাহিদুল ইসলাম পরিবারের বরাত দিয়ে বলেন, অতিরিক্ত ঋণের বোঝা সইতে না পেরে ওই যুবক আতœহত্যা করেছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মৃণাল সৈকত/আহমদ/আওয়াজবিডি

ads