নদীর পাড় ভেঙে ভাঙনের মুখে ইউপি ভবন


ইউপি ভবন
ছবি -সংগৃহীত

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণে খাগড়াছড়ির পানছড়ি উপজেলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে জনজীবনে। নদী গর্ভে হারিয়ে গেছে চেঙ্গী ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের একটি অংশ, ভেঙে গেছে দুধকছড়া ফুট ব্রিজ। পাহাড় ধসে বন্ধ হয়ে গেছে মুনিপুর-তারাবন সড়ক যোগাযোগ।

গত চারদিনের টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে পুজগাঙ নদীতে বিলীন হতে চলেছে পানছড়ির চেঙ্গী ইউনিয়ন পরিষদের একমাত্র টিনশেড ভবনটি। নদীর পাড় ভেঙে ভাঙনের মুখে পড়েছে ভবনটি। ইতোমধ্যে নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে ইউপি চেয়ারম্যানের অফিস কক্ষ। সেই সঙ্গে নদীর পানিতে তলিয়ে গেছে ইউনিয়ন পরিষদের গুরুত্বপূর্ণ অনেক কাগজপত্রও। দ্রুত ভাঙন রোধ করা না গেলে চেঙ্গী ইউনিয়ন পরিষদ ভবন পুরোপুরি নদী গর্ভে হারিয়ে যাবে এমননটাই জানিয়েছেন চেয়ারম্যান কালা চাঁদ চাকমা।

তিনি বলেন, জনগনের সেবা প্রদানের একমাত্র ঠিকানাটি নদীগর্ভে হারিয়ে গেলে এখানকার মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়বে।

এদিকে টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে দুধকছড়া ফুট ব্রিজ ভেঙে এক অংশ দেবে গেছে। একই সঙ্গে বাবুরাপাড়া ও পুজগাং ব্রিজ পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় প্রায় ৩০ গ্রামের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

অন্যদিকে পাহাড়ি ঢলে পানছড়ির দুধকছড়া, মধুমঙ্গলপাড়া, বাবুরাপাড়া, হারুবিল ও পুজগাং বাজারসহ কয়েকটি এলাকা তলিয়ে গেছে।

ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি নিশ্চিত করে পানছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কাছে সরেজমিনে গিয়েছি। সড়ক যোগাযোগ স্বাভাবিক রাখাসহ জনদুর্ভোগ নিরসনে সর্বোচ্চ চেষ্ঠা করছি।

রিয়াদ/আওয়াজবিডি

Loading...