করোনার উপসর্গে মৃত্যু, গ্রামে জায়গা না পেয়ে নদী তীরে দাফন


করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু

নওগাঁর বদলগাছীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া নাসিমা বেগম (২৫) নামে এক গার্মেন্ট শ্রমিকের লাশ দাফনে বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে।

গ্রামবাসীর বাধার মুখে পুলিশ সোমবার (১ জুন) উপজেলার তাজপুর গ্রামের ছোট যমুনা নদীর তীরে তার কাফন করে। নাসিমা বেগমের তাজপুর গ্রামের মাসুদ আলীর মেয়ে।

জানা গেছে, নাসিমা ঢাকায় পোশাক কারখানার কাজ করতো। ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে আসে। এরপর জ্বর ও সর্দি নিয়ে ২৩ মে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়।

তার অবস্থার অবনতি হলে রবিবার (৩১ মে) বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অবস্থার আরও অবনতি হলে বগুড়ার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে তিনি মারা যান।

নাসিমার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে তার মরদেহ গ্রামে প্রবেশ করতে বাধা দেওয়া হয়। পরে পুলিশের সহযোগিতায় লাশ গ্রামের প্রবেশ করলেও কবর দেওয়ার জায়গা দেয়নি। এসআই আরিফুল ইসলাম বলেন, প্রথমে গ্রামবাসীরা বাধা দিয়েছিল।

আমরা তাদের বোঝানোর চেষ্টা করেছি। গ্রামে কোনও কবরস্থান নেই। মেয়েটির বাবার ভিটা ছাড়া কোনও জমি নাই। এছাড়া নিহতের মামার জায়গা থাকলেও তারা দেননি। বিকল্প জায়গা হিসেবে অবশেষে লাশটি নদীর তীরে কবর দেওয়া হয়।

রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads