শালিস না মানায় পিটিয়ে জখম


পিটিয়ে জখম

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় শালিস মানায় সালাম কারী (৩৫) নামের এক বৈদ্যুতিক মিস্ত্রিকে বেধরক পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ উঠেছে।

এমন কান্ড ঘটিয়েছেন কুয়াকাটা পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহ- আলম হাওলাদার। শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টার এ ঘটনায় গুরুতর আহত সালাম কারী বর্তমানে কলাপাড়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ঘটনায় মহিপুর থানায় আজ শনিবার মামলার প্রস্তুতি চলছে। কুয়াকাটা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সত্তার কারীর পুত্র আহত সালাম কারী অভিযোগ করেন, কিছুদিন ধরে তার স্ত্রীর সাথে পারিবারিক সমস্যা চলছিল।

পৌর কাউন্সিলর শাহ-আলম হাওলাদার তার স্ত্রী ও শাশুড়ীর দুরসম্পর্কের আত্মীয়। এ সূত্র ধরে তাকে বিবাদ মিমাংসার জন্য ডেকে আনে স্ত্রী ও শাশুড়ী। শুক্রবার সকালে কাউন্সিলর শাহ-অলম এলে শালিস মানতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে মারধর শুরু করেন।

এসময় তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতেও বাঁধা দেয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় পুনরায় তাকে মারধর করার হুমকিও দেয়া হচ্ছে। সালাম কারীর শাশুড়ী বকুল ভানু জানান, কথা না শোনায় কাউন্সিলর শাহ-আলম সালামকে কয়েকটি লাঠির বাড়ি দিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কাউন্সিলন শাহ-আলম বলেন, সালাম কারী একজন মাদকসেবী, বখাটে। স্থানীয় গন্যমান্যসহ আমাকে অপদস্থ করায় নারিকেলের ডগা দিয়ে কয়েকটি মৃদুঘাত করা হয়েছে। এসময় দৌড়ে পালাতে গিয়ে সালামের মাথার কিছু অংশ কেটে যায়।

তবে এ বিষয়ে কোন কথা বলতে রাজি হয়নি কুয়াকাটা পৌর মেয়র আ. বারেক মোল্লা। মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান বলেন, এখনও কোন অভিযোগ পাইনি। পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এম.এ হান্নান/রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads