দুশ্চিন্তায় আক্রান্ত রোগীসহ পরিবার

করোনা: দ্বিতীয়বার নমুনা সংগ্রহ ছাড়াই রির্পোট নেগেটিভ


করোনা চিকিৎসা

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় দ্বিতীয়বার করোনা নমূনা ( স্যাম্পল) সংগ্রহ ছাড়াই রিপোর্ট নেগেটিভ এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন আক্রান্ত রোগীসহ পরিবারের সদস্যরা।

ঘটনাটি জেলার কেন্দুয়া পৌরশহরের আরামবাগ মহল্লার বাসিন্দা সত্যেন্দ্র চন্দ্র দাসের স্ত্রী কনা রানী পাল (৬০) ও একই বাসায় বসবাসকারী প্রান্তোষ দাস (৫০) এর রিপোর্টের বেলায় ঘটেছে।

এ বিষয়ে (শনিবার ৩০মে) কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডাঃ হাসিব আহসান বলেন, তাদের মোবাইল ফোনে যে ম্যাসেজ এসেছে হয়তো ভুল।

উল্লেখ্যঃ গত ২১ মে কেন্দুয়া পৌরশহরের আরামবাগ মহল্লার বাসিন্দা সত্যেন্দ্র চন্দ্র দাসের স্ত্রী কনা রানী পাল (৬০) ও একই বাসায় বসবাসকারী প্রান্তোষ দাস (৫০) এর প্রথম নমুনা সংগ্রহ করা হলে ২৩ মে রিপোর্টে পজিটিভ আসে।

বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে মোবাইলে ম্যাসেজের মাধ্যমেও জানানো হয়। এর পর নিজ বাসাতেই তারা আইসোলেশনে থাকেন। এর পর তাদের নতুন করে আর কোন নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি।

এর পরেও ২৭ মে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে আরো একটি ম্যাসেজ আসে। ওই ম্যাসেজে জানানো হয় ২৪ মে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল আর তাদের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ।

এই দুই ধরনের রির্পোট নিয়ে পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মাঝে এক ধরনের আতংক উৎকন্ঠা বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে সত্যেন্দ্র চন্দ্র দাসের ছেলের বউ সুর্মী দাস জানায়, তার শ্বাশুড়িরসহ বাসার আারেক জনের ২১ মে স্যাম্পল নেয়া হলে ২৩ মে করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

আজ পর্যন্ত তাদের কোন নমূনা নেয়া হয়নি কিন্তু ২৭ মে একটি ম্যাসেজে জানানো হয় ২৪ মে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল আর তাদের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। বিষয়টি আসলে কি বুঝতেছি না।

হুমায়ুন কবির/রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি

ads