সংসদে আমরা বকাউল্লাহ, ওনারা শোনাউল্লাহ: মেনন


মেনন

গ্যাসে দাম বাড়া নিয়ে সংসদে আলোচনার দাবি জানানোর পর সে বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত বা পদক্ষেপ না নেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে রাশেদ খান মেনন বিষয়টি উপস্থাপন করে ক্ষোভ জানান। এসময় ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া সভাপতিত্ব করেন।

এ সময় ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া জানান, বিষয়টি স্পিকারের বিবেচনায় আছে এবং সিদ্ধান্ত পরে জানানো হবে।

রাশেদ খান মেনন বলেন, আমি সংসদে গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কথা বলেছিলাম। আপনি বলেছিলেন ৬৮ বিধিতে আপনার নোটিশটি বিবেচনায় আছে। কিন্তু আজ সংসদের শেষ দিন। বিষয়টি কার্যতালিকায় নেই। নোটিশ বাতিল হয়েছে কিনা সেটা জানানোও হয়নি।

মেনন বলেন, এই নোটিশটির জবাব দেওয়ার সময় সংসদ সদস্য মাঈনুদ্দিন খান বাদল বলেছিলেন এটি জমা দিয়ে লাভ নেই। কারণ সংসদে আমরা হলাম বকাউল্লাহ, বকে যাই। ওনারা শোনাউল্লাহ শুনে যান, আর সংসদ হচ্ছে গরিবউল্লাহ। এটি নিয়ে যদি আলোচনা না হয় তাহলে সংসদ আরো গরিব হয়ে যাবে।

এ সময় ডেপুটি স্পিকার বলেন, আপনারা শুধু বকাউল্লাহ নন। আর আমরা শোনাউল্লাহ নই। আপনারা জাতীয় সংসদে যে বক্তব্য দেন সেটা সরকার কার্যকর করে। এ বিষয়ে আপনি এর আগে যখন বলেছিলেন তখন আমি জানিয়েছিলাম আপনার দেওয়া নোটিশটি স্পিকারের বিবেচনায় আছে। বিষয়টি সম্পর্কে সিদ্ধান্ত পরে জানানো হবে।

গত রবিবার মেনন সংসদে বলেছিলেন, গ্যাসের দাম নিয়ে সংসদে আলোচনার জন্য তিনি ৬৮ বিধিতে একটি নোটিশ দিয়েছেন। হাসানুল হক ইনু, মইন উদ্দীন খান বাদল, ফজলে হোসেন বাদশা, মোস্তফা লুৎফুল্লাহ এবং লুৎফননেসা খান তাঁর নোটিশে সমর্থন করেছেন।

ওই দিন জাতীয় পার্টির সাংসদ ফখরুল ইমাম জানতে চেয়েছিলেন, সংসদ অধিবেশন চলাকালে সংসদে আলোচনা ছাড়া গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত বৈধ হয়েছে কি না?

রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি