ধারালো দাঁতের ঘষায় খালেদা জিয়ার মুখে ঘা


খালেদা জিয়া

ধারালো দাঁতের ঘষায় কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুখে ঘা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) এর ডেন্টাল বিভাগের চিকিৎসায় বিষয়টি ধরা পড়েছে। এ সমস্যা নিরসনে তার যথাযথ চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

বুধবার (১২ জুন) দুপুরে দাঁত পরীক্ষার উদ্দেশে বিএসএমএমইউর কেবিন ব্লক থেকে ডেন্টাল বিভাগে নেয়া হয় ৭৪ বছর বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে। সেখানে ডেন্টাল বিভাগের কনজারভেটিভ ডেন্টিস্ট্রি অ্যান্ড অ্যান্ডোডনটিক্স, অর্থোডনটিক্স, ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি, প্রস্থোডনটিক্স ইউনিটের বিভাগীয় প্রধানসহ সিনিয়র চিকিৎসকরা তার চিকিৎসা দেন।

অর্থোডনটিক্স ইউনিটের একজন সিনিয়র চিকিৎসক দৈনিক জাগরণকে বলেন, ওই একটি ধারালো দাঁতের ঘষায় ওনার (খালেদা জিয়া) মুখে ভেতরের চামড়া ছিলে ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে। ওই ধারালো অংশে কাজ করা হয়েছে, যাতে এভাবে পুনরায় কোনও ক্ষত সৃষ্টি না হয়। বর্তমান ক্ষতস্থান নিরাময়ের জন্য ওষুধ দেয়া হয়েছে। কয়েক দিন পরে আবার চেকআপ করে দেখা হবে। যদি ঠিক হয়ে যায় তো হলোই, না হলে আবারও চিকিৎসা দেয়া হবে।

ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি ইউনিটের একজন সিনিয়র চিকিৎসক দৈনিক জাগরণকে বলেন, যেহেতু খালেদা জিয়ার ডায়াবেটিক আক্রান্ত। সেহেতু এই বয়সে তার দাঁতের বাড়তি পরিচর্যা প্রয়োজন। দাঁতের ধারালো অংশ ও এ থেকে সৃষ্ট ক্ষতের চিকিৎসা প্রদানের পাশাপাশি তার (খালেদা জিয়া) পুরো দাঁত চেকআপ করা হয়েছে। তবে তার আর কোনও সমস্যা ধরা পড়েনি।

বিএসএমএমইউর ‘এ’ ব্লকে ডেন্টাল বিভাগের চার তলায় খালেদা জিয়ার দাঁতের চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে তাকে কেবিন ব্লকে নিয়ে যাওয়া হয়।

গত ১ এপ্রিল (সোমবার) থেকে বিএসএমএমইউ’র ৬২১ নম্বর কেবিনে ভর্তি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বুধবার (১২ জুন) দুপুরে কেবিনের ভবন থেকে ‘এ’ ব্লকে নেয়া হয়। পরে ডেন্টাল ভবনের চতুর্থ তলায় নিয়ে যাওয়া হয়।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিসসহ বয়সজনিত বিভিন্ন সমস্যায় আক্রান্ত।