প্রাথমিক শিক্ষকদের পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি প্রত্যাহার


প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষাতের শর্তে পূর্বঘোষিত সমাপনী পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছেন দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) ঢাকার পুরানা পল্টন মুক্তি ভবনে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের সাধারণ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

১৪টি সংগঠনের জোট বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের ডাকে সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড ও প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড এর দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচি ঘোষণার পর এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় ৬৪ জেলার শিক্ষক প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের ৬৪ জেলার প্রতিনিধিদের নিয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সমাপনী পরীক্ষা বর্জনের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এরপর সর্বসম্মতিক্রমে সমাপনী পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচি প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এছাড়াও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী, সচিব ও অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শিক্ষকদের দাবির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতের বিষয়ে একমত আছেন এবং এই সাক্ষাতের জন্য তারা সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

শুধু তাই নয়, কর্মসূচি প্রত্যাহারের জন্য প্রতিমন্ত্রী, সচিব ও মহাপরিচালক শিক্ষক নেতাদের অনুরোধ জানিয়েছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাদের প্রতি আস্থা রেখে ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি যথাযথ সম্মান রেখে এবং ৩০ লাখ কোমলমতি পরীক্ষার্থীর উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ চিন্তা এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ঐক্য পরিষদ ঘোষিত প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হয়েছে জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, আগামী ১৭ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাত এবং দাবি পূরণ না হলে পরবর্তীতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে লাগাতার কঠোর কর্মসূচি ঘোষনা করা হবে।

এর আগে গতকাল গণশিক্ষা সচিবের সঙ্গে বৈঠকে বসেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় সচিবের কার্যালয়ে এ বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা ও শিক্ষকদের দাবির বিষয়ে কথা হয়।

জানা গেছে, গণশিক্ষা সচিব শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ করেছেন সমাপনী পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচি থেকে সরে আসতে। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষক নেতাদের সাক্ষাৎ করিয়ে দিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন গণশিক্ষা সচিব।

এরপরই আজকের বৈঠকে কর্মসূচি প্রত্যাহার করলেন প্রাথমিক শিক্ষকরা।

এসএম/আওয়াজবিডি