অমিত শাহকে ‘হত্যায় অভিযুক্ত’ বলায় আদালতে রাহুল গান্ধী


রাহুল গান্ধী

বিজেপি'র (ভারতীয় জনতা পার্টি) অন্যতম নেতা এবং ভারতের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে 'হত্যায় জড়িত' বলে অভিযুক্ত করায়, আদালতে হাজিরা দিতে হচ্ছে সাবেক কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীকে।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ভারতীয় বার্তা সংস্থা এনডিটিভি প্রকাশিত এক সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত বলায় তাঁর বিরুদ্ধে কয়েকজন বিজেপি কর্মী মানহানির মামলা দায়ের করে। গত এপ্রিল মাসে লোকসভা নির্বাচনের আগে মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসের এক প্রচারসভায় ওই মন্তব্য করেন রাহুল।

এই মানহানির মামলায় এবার নিয়ে চতুর্থবারের মত আদালতে হাজিরা দিতে যাচ্ছেন তিনি। বিজেপিকর্মীদের দাবি, গত ২৩ এপ্রিল, অমিত শাহকে যে খুনের দায়ে অভিযুক্ত বলে দাবি করেছিলেন রাহুল, তা থেকে ৫ বছর আগেই মুক্তি দেওয়া হয় বিজেপির এই সর্বভারতীয় সভাপতিকে। পাশাপাশি অমিত পুত্র জয় শাহের বিরুদ্ধেও দুর্নীতিতে জড়িয়ে থাকার অভিযোগ করেন রাহুল গান্ধি।

২০০৫ সালে গ্যাংস্টার সোহরাবউদ্দিন শেখের জাল এনকাউন্টার মামলায় নাম জড়ায় অমিত শাহের। কিন্তু ২০১৪ সালে আদালত রায় দেয় যে, অমিত শাহের বিরুদ্ধে  এ ব্যাপারে যথেষ্ট প্রমাণ নেই। গত বছর, ট্রায়াল কোর্টের এই নির্দেশকে সিবিআই চ্যালেঞ্জ না করার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া একটি পিটিশনও খারিজ করে দেয় বম্বে হাইকোর্ট।

গত সপ্তাহেই অন্য একটি মানহানির মামলায় রাহুল গান্ধিকে জামিন দেয় পাটনা আদালত। রাহুল মহারাষ্ট্রের একটি নির্বাচনী সভা থেকে বিহারের উপ-মুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদিকে উদ্দেশ্য করে বলেন "সব চোরেদের উপাধিই মোদি"। এরপরেই সনিয়া পুত্রের বিরুদ্ধে ওই মানহানির মামলা দায়ের হয় পাটনা আদালতে।

গত সপ্তাহে মুম্বই আদালতে এক আরএসএস কর্মীর দায়ের করা মানহানির মামলায় ১৫ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পান রাহুল গান্ধি। সাংবাদিক গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডের পিছনে আরএসএসের হাত আছে এই মন্তব্য করার অভিযোগেই রাহুলের বিরুদ্ধে ওই মামলা দায়ের করা হয়। আগামী ২২ সেপ্টেম্বর মামলার পরবর্তী শুনানি।

বুধবারের পর আগামী ১২ জুলাই অন্য একটি মানহানির মামলায় আদালতে হাজিরা দেওয়ার কথা রাহুল গান্ধির। আহমেদাবাদ জেলা কোঅপারেটিভ ব্যাঙ্কের তরফ থেকে রাহুলের বিরুদ্ধে ওই মামলা করা হয়েছে।

রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি