হিন্দি নাচ-গানে ভরপুর বিপিএলের উদ্বোধন, বিসিবির ব্যর্থ এক প্রচেষ্টা!

ক্রিকেটারবিহীন ও হিন্দি নাচ-গানে ভরপুর বিপিএল

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যার সাথে জড়িয়ে আছে আজকের বাংলাদেশের নাম। বাংলাদেশ যতদিন থাকবে ততদিন এই 'বঙ্গবন্ধু' নামটিও থাকবে।কিন্তু আজও যেন কোথায় অপ্রাপ্তির খাতায় একটি বিষাদময় কাঁটা বুকে আছে। যার নেতৃত্বে এই নতুন বাংলার সূচনা সেই বাংলাকে আমরা লালন করে ধারণ করতে পারছি না।

বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে অনেক আয়োজন হাতে নিয়েছে সরকার। ঠিক এরই একটি প্রচেষ্টার শেষ আয়োজন ছিল গত (৮ ডিসেম্বর) রোববার বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এবারের বিপিএল। যার জন্য এই অয়োজন, যার কারণে এই নতুন বাংলার সূচনা সেখানে বাংলার বুকে বিসিবির আয়োজন ছিল ভারতীয় সংস্কৃতিতে ভরপুর। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ(বিপিএল)।

গতকালকের কোটি কোটি টাকার বাজেটের এই বিশাল অনুষ্ঠান দেখে মনে হলো বলিউডের শিল্পিদের নাচ-গানে ভরপুর কোন অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রাম চলছে। আর দর্শক সারিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেই অনুষ্ঠানটি উপভোগ করছেন। যেখানে বাংলাদেশের সংস্কৃতি বা ঐতিহ্য খুঁজে পাওয়া খুবই দুস্কর। বাঁশ বাগানে হঠাৎ চাঁদ মামা মাঝে মাঝে উঁকি দেয় তেমনি দায় সারানোর জন্য দেশি শিল্পীদের দিয়েও যেন দায় সেরেছে আয়োজক কমিটি।

ক্রিকেটারদেরকে নিয়ে যে আয়োজনের মঞ্চ সেখানে ক্রিকেটারহীন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

ক্রিকেট নিয়ে বাংলদেশের মানুষের আবেগ অন্য জায়গায়।এই আবেগে আর ভালোবাসা দিনদিন আমাদের যে জায়াগায় আজকে নিয়ে এসেছে যার বদৌলতে গত দুই দশকে জনপ্রিয়তায় শীর্ষে জায়গা দখল করেছে খেলাটা। সেই জনপ্রিয়তাকে পুঁজি করে দেশের ক্রিকেটের উন্নয়নের স্বার্থে আইপিএলের আদলে চালু হওয়া বিপিএলও সবসময় থাকে আলোচনার শীর্ষে। তবে, সেটা মাঠের ভিতরে না যতটা ক্রিকেটীয় তার চেয়ে অক্রিকেটীয় অনেক কারণেই।

বরাবরের মতো এবারও যখন আসর শুরুর আগে নানা বিতর্কে কোনঠাসা বিপিএল, ঠিক সেই মুহূর্তে বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী পুঁজি করে বাড়তি কিছু করার প্রচেষ্টা বিসিবির। ক্রিকেট প্রায়ই হয়ে উঠে এদেশের মানুষের কাছে জাতীয়তাবোধ আর দেশপ্রেমের বহিঃপ্রকাশ। আর, বঙ্গবন্ধু তো অন্যরকম এক আবেগের নাম। কিন্তু, বিজয়ের মাসে সেই বঙ্গবন্ধুর বিপিএলে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিসিবির এমন আয়োজন ভালো চোখে দেখেননি বেশিরভাগ ক্রিকেটপ্রেমী মানুষ।

১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ১৯৫৮ সালের সামরিক শাসন বিরোধী আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ৬-দফা ও পরবর্তীতে ১১ দফা আন্দোলন এবং ১৯৬৯ সালে গণঅভ্যুত্থানসহ প্রতিটি গণতান্ত্রিক ও স্বাধিকার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন এবং বঙ্গবন্ধু উপাধি লাভ করেন যিনি, তারই নামে বিপিএল নামকরণ করে দেশীয় সংস্কৃতি ছাপিয়ে ভারতীয় শিল্পিদের এমন নাচ-গানটা সত্যি ব্যথিত করেছে সবাইকে।

যে নামে বিসিবি বিপিএলকে জনপ্রিয়তার ট্যাগ লাগাতে চাচ্ছে সেখানে উল্টো ধসে পড়ার আশংকা সৃষ্টি হয়েছে। বাকিটা গ্যালারিতে বসে উপভোগ করার অপেক্ষায়....


শাহ আহমদ সাজ
শাহ আহমদ সাজ
https://www.awaazbd.net/author/awaaz-usa

শাহ আহমদ সাজ ১৯৮৭ সালে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় জন্মগ্রহন করেন। শিক্ষা জীবনের শুরু ঢাকার সানরাইজ প্রি ক্যাডেট এন্ড কলেজে। তারপর ২০০৪ সালে কুলাউড়ার জালালাবাদ হাইস্কুল থেকে এসএসসি, ২০০৬ সালে মদন মোহন কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। ২০০৭ সালে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ইংরেজি অনার্সে ভর্তি হন।এরপর ইনফরমেশন টেকনোলজিতে পড়ালেখার জন্য লন্ডনে পাড়ি জমান এবং ক্রাউন ইন্টারন্যাশনাল কলেজে ব্যাচেলর শেষ করেন। বর্তমানে সপরিবারের যুক্তরাস্ট্রে বসবাসরত শাহ আহমদ, ছাত্রজীবন থেকেই সাহিত্য ও সৃজনশীল সবধরনের কাজের সাথে জড়িত ছিলেন। ২০১৬ সাল থেকে আওয়াজবিডি ও সাপ্তাহিক আওয়াজবিডির প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশের দায়িত্ব পালন করছেন।শাহ আহমদ বাংলাদেশ ডন-এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক।

mujib_100
ads
আমাদের ফেসবুক পেজ
সংবাদ আর্কাইভ