বাংলাদেশকে ১০টি রেল ইঞ্জিন ভারতের ঈদ উপহার

রেল ইঞ্জিন
ছবি- সংগৃহীত

আসন্ন ঈদ উপলক্ষে বাংলাদেশ রেলওয়েকে ঈদ উপহার হিসেবে ১০টি ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন (লোকোমোটিভ) দিয়েছে ভারতীয় রেলওয়ে। দুই দেশের রেলমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মধ্যে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব রেল ইঞ্জিন হস্তান্তর কার্যক্রম সম্পন্ন হয়।

সোমবার বিকেল ৪টার দিকে ইঞ্জিনগুলো বাংলাদেশে এসে পৌঁছায়।এর আগে ভারতীয় সময় সকাল ১০টার দিকে পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার গেদে রেলস্টেশনে আসে রেল ইঞ্জিনগুলো। এরপর গেদে কাস্টম ও ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টা ৫০ মিনিটে বাংলাদেশের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। জয়নগর সীমান্ত পার হয়ে ইঞ্জিনগুলো বিকেল সোয়া ৪টার দিকে বাংলাদেশের দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলস্টেশনে এসে পৌঁছায়।

ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিনগুলো ফুল দিয়ে সাজানো ছিল। ইঞ্জিনগুলো দর্শনা পৌঁছলে চালকদের ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানানো হয়। ব্রডগেজ রেল ইঞ্জিন গ্রহণের সময় দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলস্টেশনে উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য মো. আলী আজগার টগর, রেল ভবন ঢাকার অতিরিক্ত মহাপরিচালক (আরএস) মঞ্জুর-উল-আলম চৌধুরী, রাজশাহী পশ্চিম রেলওয়ে জোনের মহাব্যবস্থাপক মিহির কান্তি গ্রহ, চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার, পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলাম ও রাজশাহী পশ্চিম জোনের প্রধান প্রকৌশলী আল ফাত্তা মাসউদুর রহমান।

রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, যাত্রীবাহী ট্রেনের চাহিদা বাড়ার কারণে নতুন অনেকগুলো কোচ আমদানি করা হয়েছে। পাশাপাশি ভারতীয় পণ্য পরিবহনের জন্য ভারত থেকে লোকোমোটিভ আনার বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করা হয়। ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে সরকারিভাবে ভারত সফরের সময় উভয়দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়ানোর লক্ষ্যে লোকোমোটিভ সরবরাহের বিষয়ে আলোচনা হয়। এছাড়া একই সালের অক্টোবরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে যৌথ বিবৃতির (প্যারা ২৭) আলোকে ভারতীয় রেলওয়ে বাংলাদেশ রেলওয়েকে ১০টি লোকোমোটিভ উপহার হিসেবে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এদিকে টেকনিক্যাল বিষয়ের শর্তাবলীসহ (রক্ষণাবেক্ষণ, পরিচালন) অন্যান্য বিষয়গুলো উভয় দেশের রেল কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে নির্ধারণ করে। এই লোকোমোটিভগুলো পাওয়ার ফলে বাংলাদেশ রেলওয়ের ইঞ্জিন চাহিদা কিছুটা কমবে এবং পুর্বাঞ্চলের সঙ্গে পশ্চিমাঞ্চলের মধ্যে অধিক সংখ্যক যাত্রীবাহী এবং মালবাহী ট্রেন চালানো সম্ভব হবে।

এসএম/আওয়াজবিডি

অনলাইন ডেস্ক
অনলাইন ডেস্ক
https://www.awaazbd.net/author/awaazbdonlinenews

অনলাইন ডেস্ক

ads