আমরা মন্ত্রী রদবদল করি: সাহেদ

৩০৩
সাহেদ

সাহেদ ২০১০ সালের দিকে ধানমন্ডি এলাকায় বিডিএস ক্লিক ওয়ান এবং কর্মমুখী কর্মসংস্থান সোসাইটি (কেকেএস) নামে দু'টি এমএলএম কোম্পানি খুলে গ্রাহকদের শত কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিয়ে গা ঢাকা দিলে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকরা তার বিরুদ্ধে মামলা করেন। ২০১১ সালে তাকে গ্রেফতারও করা হয়।

একজন পাওনাদার বলেন, উনি এভাবে আমাকে বলেছেন যে, আমার সাথে কথা বলতে হলে সিটি মেয়র লেভেলের হতে হবে। এসপি-ডিসি কিছু না, আমরা মন্ত্রী রদবদল করি। যদি টাকা চান তাহলে অংশীদার যারাই আছেন, বাংলাদেশের যে প্রান্তেই থাকুক না কেনো; ধরে গুম করব।

একজন ব্যবসায়িক অংশীদার জানান, সাহেদ সাহেবের বাসায় যাওয়ার পর আমাদের প্রণব মুখার্জি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, সাবেক রাষ্ট্রপতির সাথে ছবি দেখিয়ে বলে, আমি কাদের সাথে চলি বুঝছো? আমার হাত অনেক লম্বা। যদি টাকা চাও ১০টা করে মামলা দেয়া হবে। গানম্যানদের দিয়েও আমাদের ভয় দেখানো হয়।

টাঙ্গাইলের গোবিন্দাসীর মাটি খনন ব্যবসায়ী অমলেশ ঘোষ জানান, গত বছরের শুরুর দিকে রিজেন্ট কেসিএ'র অধীনে নদীখননের জন্য চুক্তিবদ্ধ হই। একপর্যায়ে ২১ লাখ ৭৪ টাকা টাকা পাওনা হই। টাকা চাইতে গেলে আসে মৃত্যুর হুমকি। তিনি বলেন, ঘটনা তুলে ধরতে পারিনি। কারণ, আমাকে টাঙ্গাইল ডিবি অফিস ও এসপি অফিস থেকে ফোনে হুমকি দেয়া হয়েছিলো।

আওয়াজবিডি ডেস্ক
আওয়াজবিডি ডেস্ক
https://www.awaazbd.net/author/awaaz-news

অনলাইন ডেস্ক

ads