সংসদে প্রধানমন্ত্রী

অভিযোগ সত্যি হলে পাপুলের আসন খালি হবে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

মানবপাচারের অভিযোগে কুয়েতে গ্রেফতার হওয়া হওয়া লক্ষ্মীপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র দলীয় সংসদ সদস্য মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম পাপুল সম্পর্কে সরকারের অবস্থান তুলে ধরে সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সে (এমপি পাপুল) কুয়েতের নাগরিক কি না, সে বিষয়ে কুয়েতের সঙ্গে কথা বলছি।

যদি সত্যিই এটা হয়, তাহলে ওই সিট (নির্বাচনী আসন) হয়তো খালি করে দিতে হবে। যেটা আইন আছে সেটাই হবে। তার বিরুদ্ধে এখানেও তদন্ত চলছে।বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদের জবাবে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।দীর্ঘদিন পরে পয়েন্ট অব অর্ডারে বিরোধী দলের অভিযোগের জবাব দিলেন স্বয়ং সংসদ নেতা শেখ হাসিনা। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে করোনা পরিস্থিতির কারণে কঠোর স্বাস্থ্য সতর্কতা মেনে শুরু অধিবেশনে তিনি মানবপাচারের বিরুদ্ধে সরকারের কঠোর অবস্থানের কথাও উল্লেখ করেন।

রাজধানীর রিজেন্ট হাসপাতালে নিয়ে সংসদে উত্থাপিত প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটা কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকেই ধরেছি। প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে সরকার উদ্যোগ নিয়েছে এবং অনিয়মগুলো খুঁজে বের করেছি। ইতোমধ্যে জড়িতদের গ্রেফতারও করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ওই (রিজেন্ট) হাসাপতালের এই তথ্য কিন্তু আগে কেউ দেয়নি, জানাতে পারেনি। অন্য কেউ জানায়নি। সরকারের পক্ষ থেকেই খুঁজে বের করেছি, ব্যবস্থা নিয়েছি। র্যাব সেখানে গেছে। সেখান থেকে জড়িতদের খুঁজে বের করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

মানবপাচারের দায়ে কুয়েতে গ্রেফতার হওয়া সংসদ সদস্য পাপুল সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে সংসদ সদস্যের কথা বলা হয়েছে, সে কিন্তু স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য।সে কিন্তু নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য নমিনেশন চেয়েছিল, আমি কিন্তু দেইনি। সে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য। গত নির্বাচন ওই আসনটি জাতীয় পার্টিকে দিয়েছিলাম।

জাতীয় পার্টির নোমান (প্রার্থী) নমিনেশন পেয়েছিল, কিন্তু সে নির্বাচন করেননি। এ কারণে ওই লোক (এমপি পাপুল) জিতে আসে। এরপর আবার তার স্ত্রীকেও যেভাবে হোক বানায় (সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য)। কাজেই তাকে এমপি হওয়া কিন্তু আমাদের বানানো নয়।

সংসদ নেতা বলেন, এখানে প্রশ্ন উঠেছে ওই সংসদ সদস্য (পাপলু) নাকি কুয়েতের নাগরিক! সে কুয়েতের নাগরিক কি না, সেটা নিয়ে কুয়েতের সঙ্গে কথা বলছি, বিষয়টা দেখবো। যদি এটা হয় তাহলে তাঁর ওই আসনটি (লক্ষ্মীপুর-২) খালি করে দিতে হবে। যেটা আইন আছে, সেটাই হবে। আর তার বিরুদ্ধে এখানেও তদন্ত চলছে।

এর আগে পয়েন্ট অব অর্ডারে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ সংবিধানের ৬৬ অনুচ্ছেদের ব্যাখ্যা তুলে ধরে বলেন, সংসদে নির্বাচিত হওয়ার যোগ্যতা এবং অযোগ্যতা সম্পর্কে যে বিষয়টি তা এখানে স্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, যদি কেউ কোন বিদেশি রাষ্ট্রের নাগরিকত্ব অর্জন করেন কিংবা কোনো বিদেশী রাষ্টের আনুগত্য স্বীকার করে- তাহলে তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচন করার যোগ্য হবেন না।

এ প্রসঙ্গে কুয়েতে গ্রেফতারকৃত সংসদ সদস্য পাপুল প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, পত্রপত্রিকার রেফারেন্স দিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, কুয়েতের নাগরিক হিসেবে এমপি পাপুল সেখানে গ্রেফতার হয়েছেন। আজকে যদি সত্যিই পাপুল কুয়েতের নাগরিকত্ব গ্রহণ করে থাকেন, তাহলে এ ব্যাপারে স্পিকারকে এর সুষ্পষ্ট ব্যাখ্যা দিতে হবে। কারণ নিশ্চয়ই পররাষ্ট্র মন্ত্রী তথ্য সংগ্রহ করেই বলেছেন। আর তথ্য গোপণ করে সে নির্বাচনে অংশ নিয়েছে।

রিজেন্ট হাসপাতালের অপকর্মসহ স্বাস্থ্যখাতের অনিয়মের অভিযোগ করে বিএনপির এই এমপি বলেন, কোভিড টেস্টের অনুমতি দলীয় বিবেচনায় দেওয়া হয়েছে দুর্নীতি করতে। রিজেন্ট হাসপাতালের যে পরিচালনা বোর্ড রয়েছে, তাদের অগোচরেই কি এসমস্ত অপকর্ম হয়েছে?

মানুষের জীবন-মরণের সংকটময় মুহূর্তে সরকারের জায়গা থেকে র্যাব অভিযান চালিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে। কিন্তু এতে আমরা সন্তুষ্ট নই, এই রকম ব্যক্তিদের বাঁচিয়ে রাখা উচিত নয়। তাদের ক্রয়ফায়ারে দেওয়া উচিত। তবে করোনা মোকাবেলায় বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনলাইন ডেস্ক
অনলাইন ডেস্ক
https://www.awaazbd.net/author/oeazq8
ads