গ্রেফতার অভিযানের আগেই থানা থেকে ফোন পান বিকাশ দুবে

১৯৪
বিকাশ দুবে

ভারতের উত্তর প্রদেশে আট পুলিশ হত্যার ঘটনায় মূল অভিযুক্ত বিকাশ দুবের অন্যতম সহযোগী দয়া শঙ্কর অগ্নিহোত্রীকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। রবিবার এক বন্দুকযুদ্ধের পর তাকে আটক করা হয়েছে। গ্রেফতারের পর দয়া শঙ্কর জানিয়েছে, অভিযানের আগেই থানা থেকে ফোন করে বিকাশ দুবেকে কেউ একজন সতর্ক করে দেয়। এর পরেই সে ২৫-৩০ জনকে জোগাড় করে পুলিশের ওপর গুলি ছোড়ে।

এছাড়া পুলিশ জানিয়েছে, বিকাশের মোবাইল ফোন লিস্টে অন্তত ২০ পুলিশ কর্মকর্তার নাম পাওয়া গেছে। এমনকি দুই কর্মকর্তা তার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রেখেছে বলেও জানা গেছে।

গত শুক্রবার ভোরে ভারতের উত্তর প্রদেশের কানপুরে সন্ত্রাসী বিকাশ দুবেকে গ্রেফতার করতে গিয়ে অতর্কিত গুলিবর্ষণে কর্মকর্তাসহ আট পুলিশ সদস্য নিহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছাতেই বিকাশ দুবে ও তার সহযোগীরা গুলিবর্ষণ শুরু করে। সুপারিনটেনডেন্ট দেবেন্দ্র কুমার মিশ্রসহ নিহত অন্যদের মধ্যে রয়েছে, তিন জন সাব-ইন্সপেক্টর এবং চার জন কনস্টেবল। ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছে বিকাশ।

রবিবার কানপুরের কল্যাণপুর এলাকায় বন্দুকযুদ্ধের পর আটক হয় বিকাশের সহযোগী দয়া শঙ্কর অগ্নিহোত্রী। গ্রেফতারের পর তার দাবি, পুলিশের ওপর হামলার সময়ে সে একটি বাড়িতে আটকা পড়েছিল। সে কারণে ওই সময় কী ঘটেছে তা দেখতে পায়নি।

এদিকে বিকাশের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখার অভিযোগে চৌবেপুর পুলিশ স্টেশনের এক কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। বিনয় তিওয়ারি নামের ওই কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএনআই।

বার্তা সংস্থাটি জানিয়েছে, বিনয় তিওয়ারি নিয়মিত বিকাশ দুবের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রাখছিল আর অভিযানের সময় পুলিশের ব্যাকআপ টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে দেরি করিয়ে দেয়।

খুন, অপহরণ, চাঁদাবাজি ও দাঙ্গাবাজিসহ ৬০টিরও বেশি মামলায় আগে থেকেই অভিযুক্ত বিকাশ দুবে অভিযানের তথ্য আগে জানতে পারায় একে-৪৭সহ ভারি অস্ত্র জোগাড়ে সমর্থ হয়। আর পুলিশের বড় ধরনের একটি দলকে প্রাণঘাতী ফাঁদে ফেলার প্রস্তুতি নিতে সক্ষম হয়।

কানপুরের পুলিশ প্রধান মোহিত আগারওয়াল সব পুলিশের জন্য কঠোর সতর্ক বার্তা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, অপরাধীদের সহায়তা দেওয়ায় দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে এএনআই জানিয়েছে, বিকাশ দুবেকে সর্বশেষ উত্তর প্রদেশের আরাইয়াতে দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, সে হয় মধ্য প্রদেশ নয়তো রাজস্থানে পালিয়েছে। দুটি রাজ্যের সঙ্গেই যোগাযোগ করেছে উত্তর প্রদেশ পুলিশ।

আওয়াজবিডি ডেস্ক
আওয়াজবিডি ডেস্ক
https://www.awaazbd.net/author/awaaz-news

অনলাইন ডেস্ক

ads