জোনিং পরিকল্পনায় কেবল সংক্রমনের সংখ্যাই নয়, বৃদ্ধিও গ্রাহ্য করা উচিত

মিজানুর রহমান, জবি প্রতিনিধি
মিজানুর রহমান, জবি প্রতিনিধি
০৮ জুন ২০২০, ০৯:০৭ পূর্বাহ্ণ
৪৭৯
জোনিং পরিকল্পনা

কিছু জেলাতে সংক্রমনের হার তাত্‍পর্যপূর্ণভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। যদি এই জেলা / শহরগুলির একটিতেও ব্যাপক নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তবে তাদের পরবর্তী কেন্দ্রস্থল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ঢাকা সিটি এবং চট্টগ্রামে সংক্রমনের বৃদ্ধি এখনও উদ্বেগজনক। নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, কিশোরগঞ্জ তুলনামূলকভাবে সংক্রমনের উন্নত আকার ধারণ করেছে।

সরকার যখন জোনিং করার পরিকল্পনা করছে, তাদের কেবল সংক্রমনের সংখ্যাই নয়, বৃদ্ধিও গ্রাহ্য করা উচিত। অন্যথায়, ব্যবস্থাগুলি কম কার্যকর হবে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতির লাগাম টানতে এবার এলাকাভিত্তিক লকডাউনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আক্রান্তের আধিক্য বিবেচনায় রেড জোন, ইয়েলো জোন এবং গ্রিন জোন- এই তিন জোন চিহ্নিত করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বাস্তবায়ন হবে স্বাস্থ্যবিধি ও আইনি পদক্ষেপ। শুধুমাত্র আক্রান্তের আধিক্য বিবেচনায় এই জোনিং ব্যবস্থা করলে গৃহীত পদক্ষেপ গুলো অকার্যকর হয়ে যাবে।

তাই বৃদ্ধি এবং সংক্রমনের সংখ্যা বিবেচনা করে আমরা এইভাবে জোনিংয়ের কথা ভাবতে পারি-

রেড জোন: ঢাকা শহর, চট্টগ্রাম , ঢাকা জেলা, সিলেট, নোয়াখালী, ফেনী, কক্সবাজার, ফরিদপুর, কুমিল্লা, মুন্সীগঞ্জ

গ্রীন জোন: বাগেরহাট, বান্দরবান, গাইবান্দা, ঝালকাঠি, খাগড়াছড়ি, লালমনিরহাট, মাগুরা, মেহেরপুর, নড়াইল, পাবনা, পঞ্চগড়, পিরোজপুর, সাতক্ষীরা, সিরাজগঞ্জ।

ইয়েলো জোন: অন্যান্য সমস্ত জেলা।

যেহেতু আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অন্যান্য দেশের তুলনায় দুর্বল, তাই আমাদের কাছে নিয়ন্ত্রণ ছাড়া অন্য কোনও বিকল্প নেই।

*** এই বিভাগে প্রকাশিত লেখা দায় একমাত্র লেখকের

এসএম/আওয়াজবিডি


মিজানুর রহমান, জবি প্রতিনিধি
মিজানুর রহমান, জবি প্রতিনিধি
https://www.awaazbd.net/author/201908151565863326
mujib_100
ads
আমাদের ফেসবুক পেজ
সংবাদ আর্কাইভ