সৌদি আরবের সঙ্গে দেশের যেসব জেলায় রবিবার ঈদ

৫৪৫
ঈদ জামাতের আয়োজন নয়

সৌদি আরবে শুক্রবার সন্ধ্যায় শাওয়াল মাসের চাঁদ না দেখায় রবিবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। প্রতিবারের ন্যায় এবারো সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায়ও পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন হবে।  

বরিশাল: বরিশালে রোববার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন হবে। প্রতিবার জাঁহাগীরিয়া শাহ সুফি মমতাজিয়া মতাদর্শীরা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোজা পালন, পবিত্র ঈদুল ফিতর ও আজহা উদযাপন করেন।

শরীয়তপুর: সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করবে শরীয়তপুরের সুরেশ্বর দরবার শরিফের ভক্ত ও মুরিদানসহ ৩০টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ। সুরেশ্বর দরবার শরিফের পীর জানশরিফ মাওলানার আমল থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে চন্দ্র মাসের গণনা অনুযায়ী সৌদির সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র ঈদুল ফিতর ও আজহা উদযাপন করছেন তারা।

চাঁদপুর: প্রতিবারের ন্যায় চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ ও ফরিদগঞ্জের ৪০টি গ্রামে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করা হবে। তারাও প্রায় শত বছর ধরে সৌদির সঙ্গে রোজা পালন ও ঈদ উদযাপন করছে।

শেরপুর: শেরপুরের চারটি উপজেলার আটটি এলাকায় সৌদি আরবের সঙ্গে রোজা পালন ও ঈদ উদযাপন করা হয়। এর মধ্যে নকলা উপজেলার চরকৈয়া গ্রামে হয় সবচেয়ে বড় জামাত। চরকৈয়া গ্রামের একটি বিশেষ তরিকার অনুসারীরা রোববার ঈদ উদযাপন করবেন।

পটুয়াখালী: অন্যান্য জেলার মতো পটুয়াখালী সদর, বাউফল, গলাচিপা ও কলাপাড়ার ৩০টি গ্রামের অন্তত ৫০ হাজার মুসলমান রোববার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন। সৌদি আরবের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ১৯২৮ সাল থেকে হানাফি মাজহাবের অনুসারী প্রায় ৫০ হাজার মুসলমান রোজা রাখা শুরু করেন। এরা চট্টগ্রামের এলাহাবাদ সুফিয়া ও বদরপুর দরবার শরিফ এবং চানটুপির অনুসারী হিসেবে পরিচিত। পৃথিবীর যেকোনো স্থানে চাঁদ উঠলেই রোজা রাখা ও ঈদ উদযাপনে বিশ্বাসী এ তরিকার মানুষ।

ফরিদপুর: ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা ও বোয়ালমারীতে রবিবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। যুগ যুগ ধরে চট্টগ্রামের হজরত ইয়াছিন মিয়ার অনুসারীরা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোজা পালন, পবিত্র ঈদুল ফিতর ও আজহা উদযাপন করে আসছেন।

ঝিনাইদহ: ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুর ১০ গ্রামে রবিবার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন হবে। সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে প্রতি বছরই পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করেন তারা।

মাদারীপুর: মাদারীপুরের চারটি উপজেলার ৩০ গ্রামের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ রোববার পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন করবে। উদযাপনকারীরা সবাই সুরেশ্বর পীরের মুরিদ। সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র ঈদুল ফিতর-আজহা উদযাপন করেন তারা।

এসএম/আওয়াজবিডি


অনলাইন ডেস্ক
অনলাইন ডেস্ক
https://www.awaazbd.net/author/awaazbdonlinenews

অনলাইন ডেস্ক

mujib_100
ads
আমাদের ফেসবুক পেজ
সংবাদ আর্কাইভ