কমছে মৃত্যু, নিউইয়র্কে চালু হচ্ছে 'সেলফ সোয়াব টেস্ট'

ক্যুমো

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় নিউইয়র্কে 'সেলফ সোয়াব টেস্ট'(SELF-SWAB TESTS) চালু হচ্ছে।জরুরি ভিত্তিতে ১ হাজার 'কন্টাক্ট ট্রেসার' নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।

২৭ এপ্রিল সোমবার নিউইয়র্ক নগরীর মেয়র বিল ডি ব্লাজিও বলেছেন, যারা প্রতিভাবান, অভিজ্ঞ স্বাস্থ্যকর্মী তাঁদেরকেই নিয়োগ দেওয়া হবে। স্বাস্থ্য সেবাখাতে অভিজ্ঞতা আছে এমন লোকজনকে নগরীর অবিলম্বে প্রয়োজন উল্লেখ করে মেয়র বলেছেন যে, আসছে পুরো মে মাসেই এ নিয়োগ চলবে। এসব 'স্বাস্থ্য গোয়েন্দারা' নগরীর লোকজনকে চিহ্নিত করবে যারা কোভিড-১৯ ভাইরাসে সংক্রমিত হচ্ছে।

নিউইয়র্ক নগরীর ৪০ মাইল সড়ক পথে গাড়ি চলাচল বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকবে। বিচ্ছিন্নতা বজায় রেখে জনগণের হাঁটাচলার সুবিধার জন্য এ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে । মে মাসের ১২ তারিখ পর্যন্ত নগরীর বিকল্প পার্কিং নিয়ম স্থগিত রাখা হয়েছে।

মেয়র ডি ব্লাজিও বলেছেন, নিউইয়র্ক নগরী বিপর্যস্ত অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়াবার ঐতিহ্য আছে। এবারেও আরও শক্রিশালী হয়ে ঘুরে দাঁড়াবে। নগরী পুনরায় চালু হবে চৌকস পদক্ষেপের মাধ্যমে। আগামী ২০ মাস জুড়ে এ ঘুরে দাঁড়ানোর প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন করা হবে। পুরো পরিকল্পনাটি জুন মাসের ১ তারিখের মধ্যেই নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

আমেরিকার সবচেয়ে প্রাণবন্ত ও ব্যস্ত নিউইয়র্ক নগরী এখনো মৃত্যুপুরী। এ নগরীর প্রাণ ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য দ্রুত নানা পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। ১ মে থেকে এসব পদক্ষেপের কথা বিস্তারিত জানা যাবে। শুধুই খুলে দেয়ার বদলে টাস্ক ফোর্সের মাধ্যমে নগরীর ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক মন্দা থেকে বের হওয়ার জন্য সমন্বিত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে মেয়র জানিয়েছেন।

রাজ্যের গভর্নর এন্ড্রু ক্যুমো বলেছেন, মৃত্যুর সংখ্যা আগের দিনগুলোর তুলনায় অব্যাহত ভাবে হ্রাস পাচ্ছে।

তিনি বলেন, ২৬ এপ্রিল রবিবার ৩৬৭ নাগরিক মারা যান। এখনো এই সংখ্যাটি অসহনীয়। তিনি বলেন ৩৬৭ জনের মৃত্যু মানে ৩৬৭টি পরিবারে ধ্বংস নেমে আসা।

ক্যুমো মনে করিয়ে দেন, একমাস পূর্বের অবস্থা অনেক বেশী ভয়াবহ ছিল।ক্যুমো বলেন, ৩১ মার্চের পর থেকে নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে সবচেয়ে কম মৃত্যু হয়েছে ২৬ এপ্রিল রবিবার। যদিও নিউইয়র্ক রাজ্যের ৪ হাজার ২০০জনের মৃত্যু করোনাভাইরাসের পরিসংখ্যানে যোগ করা হয়নি।

তিনি উল্লেখ করেন, এখনো যেহেতু হাজারো নতুন করোনা ইতিবাচক রোগী প্রতিদিন পাওয়া যাচ্ছে। আমাদের রিওপেনের বিষয়টি সতর্কতার সাথে দেখতেই হবে।


শাহ আহমদ সাজ
শাহ আহমদ সাজ
https://www.awaazbd.net/author/awaaz-usa

শাহ আহমদ সাজ ১৯৮৭ সালে মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় জন্মগ্রহন করেন। শিক্ষা জীবনের শুরু ঢাকার সানরাইজ প্রি ক্যাডেট এন্ড কলেজে। তারপর ২০০৪ সালে কুলাউড়ার জালালাবাদ হাইস্কুল থেকে এসএসসি, ২০০৬ সালে মদন মোহন কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। ২০০৭ সালে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ইংরেজি অনার্সে ভর্তি হন।এরপর ইনফরমেশন টেকনোলজিতে পড়ালেখার জন্য লন্ডনে পাড়ি জমান এবং ক্রাউন ইন্টারন্যাশনাল কলেজে ব্যাচেলর শেষ করেন। বর্তমানে সপরিবারের যুক্তরাস্ট্রে বসবাসরত শাহ আহমদ, ছাত্রজীবন থেকেই সাহিত্য ও সৃজনশীল সবধরনের কাজের সাথে জড়িত ছিলেন। ২০১৬ সাল থেকে আওয়াজবিডি ও সাপ্তাহিক আওয়াজবিডির প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশের দায়িত্ব পালন করছেন।শাহ আহমদ বাংলাদেশ ডন-এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক।

mujib_100
ads
আমাদের ফেসবুক পেজ
সংবাদ আর্কাইভ